মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

ফসলের উন্নত জাত

এলাকার প্রধান শস্য ও চাষাবাদের ধরণ  ‍ঃ

ক্রঃ নং

প্রৃধান প্রধান শস্য

শষ্যের ধরণ

চাষাবাদের ধরণ

পাট

আঁশ জাতীয়

 

মসুর, খেসারী, মাসকলাই, মুগ, মটর

ডাল জাতীয়

সরিষা, তিল, বাদাম

তৈল জাতীয়

রসুন, পেঁয়াজ, আদা, গলুদ, মরিচ, ধনিয়া

মসলা জাতীয়

৬।

আখ

চিনি জাতীয়

আল, মিষ্টি আলু

মূল ও কন্দ জাতীয়

টমোটো, বেগুন, কপি, পালং শাক, ডাঁটা, মূলা, পেঁপে,

সবজী জাতীয়

 

রববটি, কাকরুল, কয়লা ইত্যাদি।

আল, মিষ্টি আলু

মূল ও কন্দ জাতীয়

 

শস্য বহুমুখী করণ, মৌ চাষ, ঔষধী বাগান, বনজ নার্সারী ও ফল বাগানের তথ্য

 

শস্য বহুমুখী করণ ‍ঃ

     খাদ্যের ব্যাপক চাহিদা ও দারিদ্র বিমোচনে সকল পর্যায়ে শস্য বহুমুখীকরণ কার্যক্রম চলছে।শুধু ধান-পাট চাষ না করে যাবতীয় উৎপাদনযোগ্য ফসল ও মৎস্য চাষ, পশু পালন হাঁস মুরগী পালন, ফলজ বনজ ও ঔষধী বৃক্ষরোপণ প্রভৃতি কার্যক্রম সমন্বিতভাবে পরিচালনা করার উদ্যোগ বিভিন্নভাবে চলছে।

 

ঔষধী বাগান ‍ঃ

     ঔষধী গাছ লাগানোর জন্য সরকারী বেসরকারীভাবে জনগণকে ব্যাপক উৎসাহিত করা হচ্ছে। প্রতিটি রাস্তার দু’পাশে শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে অন্যান্য বৃক্ষরোপনের পাশাপাশি ঔষধী বৃক্ষ রোপণের ব্যাপারে জোর তাগিদ দেয়া হচ্ছে।

 

বনজ নার্সারী ‍ঃ

বন নার্সারী এখানে ব্যাপকভাবে সম্প্রসারিত হচ্ছে। উপজেলার রেইনট্রি, আকাশমনি, ম্যানজুরি, শিশু, বাবলা, মেহগনি প্রভৃতি নার্সারী লক্ষ্য করা যায় ।

 

ফলের বাগান ‍ঃ

     বাণিজ্যিকভাবে সুনির্দিষ্ট কোন ফলের বাগান নেই। তবে বিছিন্নভাবে প্রায় সকল ফলই উৎপাদিত হয় । ইদানিং কলা ও পেঁপের বাগান সম্প্রসারিত হচ্ছে। সম্প্রতি বি.এ.ডি.সি ও উদ্যান নার্সারীর মাধ্যমে ফল বাগান স্থাপনের নিমিত্তে ব্যাপক পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।বন্যাত্তোর কৃষি পূনর্বাসনের আত্ততায় কৃষাণীদের মাঝে ফল বাগান স্থাপন করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয়ের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদে স্থায়ী একটি আম্রপালি বাগান ইতিমধ্যে স্থাপিত হয়েছে।

 

ভূট্রা ‍ঃ

     অত্র উপজেলায় এক সময় ভূট্রা চাষ খুবই নগন্য ছিল। সম্প্রতি কৃষি বিভাগের উদ্যোগে এ উপজেলায় সকল ইউনিয়ই ভূট্রা চাষ বৃদ্ধি পেয়েছে । বিশেষত শাহেদল ও পুমদী ইউনিয়নে ব্যাপক হারে ভূট্রা চাষ হচ্ছে। চাষীরা বর্তমানে আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছে।